×
ব্রেকিং নিউজ :
রেমিট্যান্স প্রেরণকারীদের স্মার্ট কার্ড প্রদানের সুপারিশ করেছে অর্থ মন্ত্রণালয় স্থায়ী কমিটি এভিয়েশন শিল্পের উন্নয়নে সহযোগিতা করতে চায় যুক্তরাজ্য চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সুফল দিতে সরকার নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আসছে : শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে চীনের প্রাদেশিক কংগ্রেসের ভাইস চেয়ারম্যানের সাক্ষাৎ নির্মাণাধীন ভবনে লার্ভা পেলে নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হবে : মেয়র তাপস বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে মরিশাসের প্রতি আহ্বান তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে থাইল্যান্ডে প্রধানমন্ত্রীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা কক্সবাজারে ভোটার তালিকায় থাকা রোহিঙ্গাদের তালিকা চেয়ে হাইকোর্ট আদেশ মন্ত্রী-এমপি’র স্বজনরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে ব্যবস্থা: ওবায়দুল কাদের
  • প্রকাশিত : ২০২৩-০৫-১৩
  • ৫০১৫ বার পঠিত
  • নিজস্ব প্রতিবেদক
তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, দেশের ১৩ কোটি মানুষ ইন্টারনেট সেবা পাচ্ছে। সুবিধাভোগীরা এ সেবা নিয়ে দৈনন্দিন জীবনে ব্যাপক পরিবর্তন সাধনে সক্ষম হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী আজ উপকূলীয় জেলা পিরোজপুরে ষ্মার্ট নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।  
পিরোজপুর জেলা প্রশাসনের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক-সাঈফ মিজান স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমানের সভাপতিত্বে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন, পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইদুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সালমা রহমান হ্যাপী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মজিবর রহমান খালেক, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কানাই লাল বিশ্বাস, ভার্মিকম্পোষ্ট ক্ষুদ্র প্রকল্পের উদ্যোক্তা রিনা রানী দত্ত, ও শাহানাজ পারভীন শানু।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, পিরোজপুরে ১৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার ও জয় ডি-সেট সেন্টার স্থাপন করা হবে। এ লক্ষে পিরোজপুর শহরতলীর পিরোজপুর-নাজিরপুর বাইপাস সড়কের ঝাটকাঠী এলাকায় স্থান নির্ধারন করা হয়েছে এবং অচিরেই নির্মাণ কাজ শুরু হতে যাচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, দেশের বাইরে ১৫টিসহ সারাদেশে ৫ হাজারেরও বেশি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। জাতীয় হেল্প লাইন ৩৩৩ নম্বরে এ পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটি বার কল করে মানুষ বিভিন্ন তথ্য ও সেবা নিয়েছে। 
তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সাইবার নিরাপত্তা সূচকে বাংলাদেশের ব্যাপক অগ্রগতি হয়েছে। করোনাকালীন সময়ে ভার্চ্যুয়াল কোর্ট চালু করে বিচার ব্যবস্থা পরিচালিত হয়েছে। প্রায় দেড় হাজার সরকারী সেবা ডিজিটাল সেবায় রূপান্তরিত করায় কোটি কোটি মানুষ উপকৃত হচ্ছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, পাকিস্তান আমলে কোন নারীর বিচারকের আসনে বসার অধিকার ছিল না। বঙ্গবন্ধু সংবিধানে সেই অধিকার নিশ্চিত করেছেন এবং তার কন্যা শেখ হাসিনার সরকারের ৪ মেয়াদে শত শত নারী বিচারক এর আসনে বসার সুযোগ পেয়েছে। 
তিনি আরও বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে ‘ষ্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মানে আমাদের নারীদেরও ষ্মার্ট সিটিজেন হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সে লক্ষে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
#
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat