Logo
×
ব্রেকিং নিউজ :
দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির মানুষ উন্নয়ন চায় বলেই পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা বিপুল ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন : সেতুমন্ত্রী পৌর নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক : তথ্যমন্ত্রী জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুপ প্রভাব মোকাবেলায় নিরলসভাবে কাজ করছে সরকার : পরিবেশ মন্ত্রী ডিএনসিসি মেয়রের সাথে কসভোর রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ টাঙ্গাইলের কাগমারীতে কন্যাসন্তান জন্ম হলেই মিলছে পুলিশ কর্মকর্তার উপহার মেহেরপুর ও নীলফামারীতে শীতার্তদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ ব্রিসবেন টেস্ট: সিরিজ জিততে ভারতের দরকার ৩২৪ রান, অস্ট্রেলিয়ার ১০ উইকেট লা লিগা: মেসির লাল কার্ডে বার্সাকে হারিয়ে সুপার কাপের শিরোপা জিতরো বিলবাও দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ৬৯৭,মারা গেছেন ১৬ জন
  • আপডেট টাইম : 03/01/2021 07:54 PM
  • 59 বার পঠিত

 দেশে করোনাভাইরাস শনাক্তের ৩০১তম দিনে ২৪ ঘন্টায় এই ভাইরাসে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৭ জন, এই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ৯৭৮ জন।
গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৭ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। গতকালের চেয়ে আজ ৪ জন বেশি মৃত্যুবরণ করেছে। গতকাল ২৩ জন মৃত্যুবরণ করেছিলেন। এখন পর্যন্ত দেশে এ ভাইরাসে মৃত্যুবরণ করেছেন ৭ হাজার ৬২৬ জন। করোনা শনাক্তের বিবেচনায় আজ মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৮ শতাংশ। গতকালও মৃত্যুর
একই হার ছিল।
গত ২৪ ঘন্টায় ১০ হাজার ৯২৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮৩৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। গতকালের চেয়ে আজ ১৫১ জন বেশি শনাক্ত হয়েছেন। গতকাল ৯ হাজার ৭০১ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছিলেন ৬৮৪ জন।
গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৭ দশমিক ৬৪ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ৭ দশমিক ০৫ শতাংশ। গতকালের চেয়ে আজ শনাক্তের হার দশমিক ৫৯ শতাংশ বেশি।
আজ স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে এ পর্যন্ত মোট ৩২ লাখ ৬০ হাজার ৩২৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫ লাখ ১৬ হাজার ১৯ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মোট পরীক্ষার ২৫ লাখ ৮১ হাজার ১০৬টি হয়েছে
সরকারি এবং ৬ লাখ ৭৯ হাজার ২২১টি হয়েছে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়। মোট পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৮৩ শতাংশ। গতকাল পর্যন্ত এই হার ছিল ১৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতাল এবং বাসায় মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৯৭৮ জন। দেশে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৬০ হাজার ৫৯৮ জন।
আজ শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৯ দশমিক ২৬ শতাংশ। গতকাল সুস্থতার হার ছিল ৮৯ দশমিক ২১ শতাংশ। গতকালের চেয়ে আজ সুস্থতার হার দশমিক ০৫ শতাংশ বেশি।
বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১০ হাজার ৮৬৭ জনের। আগের দিন সংগ্রহ করা হয়েছিল ৯ হাজার ৫০৯ জনের। গতকালের চেয়ে আজ ১ হাজার ৩৫৮টি নমুনা বেশি সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দেশের সরকারি ১১৫ ও বেসরকারি ৬৫টিসহ ১৮০টি
পরীক্ষাগারে (এন্টিজেন টেস্টসহ) নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১০ হাজার ৮৬৭ জনের। আগের দিন নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল ৯ হাজার ৭০১ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় আগের দিনের চেয়ে ১ হাজার ২২৪টি বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত শনাক্ত ৩০২৯ দশমিক ৯৪ জন। সুস্থ হয়েছেন প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত ২৭০৪ দশমিক ৫২ জন এবং প্রতি ১০ লাখে মারা গেছেন এ পর্যন্ত ৪৪ দশমিক ৭৮ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরণকারী ২৭ জনের মধ্যে পুরুষ ১৬ জন, আর নারী ১১ জন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছেন ৫ হাজার ৭৯৭ জন, আর নারী মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ৮২৯ জন। শতকরা হিসেবে পুরুষ ৭৬ দশমিক ০২ শতাংশ; নারী ২৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ। ২৪ ঘন্টায় ২৭ জনই হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৪১ থেকে ৫০ বছরের বছরের ৩ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৫
জন এবং ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ১৯ জন। এখন পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৩৫ জন; যা দশমিক ৪৬ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৫৭ জন; যা দশমিক ৭৫ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১৬০ জন; যা ২ দশমিক ১০ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৩৮০ জন; যা ৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ; ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৮৯৪ জন; যা ১১ দশমিক ৭২ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১ হাজার
৯৩২ জন; যা ২৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সের রয়েছেন ৪ হাজার ১৬৮ জন; যা ৫৪ দশমিক ৬৬ শতাংশ।
মৃত্যুবরণকারীদের বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৪ ঘন্টায় ঢাকা বিভাগে ১৫ জন, রাজশাহী বিভাগে ৪ জন, খুলনা বিভাগে ১ জন, রংপুর বিভাগে ৩ জন এবং সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগে ২ জন করে মৃত্যুবরণ করেছেন। এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের বিশ্লেষণে
ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৪ হাজার ১৯২ জন; যা ৫৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ। চট্টগ্রাম বিভাগে ১ হাজার ৪১৪ জন; যা ১৮ দশমিক ৫৪ শতাংশ। রাজশাহী বিভাগে ৪৩৮ জন; যা ৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ। খুলনা বিভাগে ৫৩৪ জন; যা ৭ শতাংশ। বরিশাল বিভাগে ২৩৮ জন; যা ৩ দশমিক ১২ শতাংশ। সিলেট বিভাগে ২৯৩ জন; যা ৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ। রংপুর বিভাগে ৩৪৬ জন; যা ৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১৭১ জন; যা ২ দশমিক ২৪ শতাংশ।
ঢাকা মহানগরীতে কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৩ হাজার ২৬৯টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৪৩০ জন ও শয্যা খালি আছে ১ হাজার ৮৩৯ টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩১০টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি রোগী আছে ১৮৪ জন ও শয্যা খালি আছে ১২৬টি। চট্টগ্রাম মহানগরীতে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৬৮৭টি, ভর্তিকৃত রোগী ২৩৭ জন ও শয্যা খালি আছে ৪৫০টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৪৫টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি আছে ২২ জন ও শয্যা খালি আছে ২৩টি। সারাদেশে অন্যান্য হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৬ হাজার ৫৩৯টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগী ৫০০ জন ও শয্যা খালি আছে ৬ হাজার ৩৯টি এবং
আইসিইউ শয্যা রয়েছে ২৪৭টি ও আইসিইউ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৭৭ জন ও শয্যা খালি আছে ১৭০টি। সারাদেশে হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ১০ হাজার ৪৯৫টি, রোগী ভর্তি আছে ২ হাজার ১৬৭ জন এবং শয্যা খালি আছে ৮ হাজার ৩২৮টি।
সারাদেশে আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৬০২টি, রোগী ভর্তি আছে ২৮৩ জন এবং খালি আছে ৩১৯টি। সারাদেশে সরকারি হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা ১২ হাজার ৭৯৫টি। সারাদেশে হাই ফ্লো নেজাল ক্যানেলা সংখ্যা ৭১৯টি এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ৬২১টি, আইসিইউ বেড ৬৮৮ ও ভেন্টিলেটর ৬২০।
০১৩১৩-৭৯১১৩০, ০১৩১৩-৭৯১১৩৮, ০১৩১৩৭৯১১৩৯ এবং ০১৩১৩৭৯১১৪০ এই নম্বরগুলো থেকে হাসপাতালের সকল তথ্য পাওয়া যাবে। কোন হাসপাতালে কতটি শয্যা খালি আছে। কত রোগী ভর্তি ও কতজন ছাড় পেয়েছেন এবং আইসিইউ শয্যা খালি আছে কি না এই ফোন নম্বরগুলোতে ফোন করে জানা যাবে। এছাড়া www.dghs.gov.bd এর CORONA কর্ণারে ‘করোনা বিষয়ক অভিযোগ প্রেরণ’ লিঙ্ক অথবা
http:/app.dghs.gov.bd/covid19-complain লিঙ্ক ব্যবহার করে করোনা বিষয়ক যেকোন অভিযোগ পাঠানো যাবে।
গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হওয়া ৯৭৮ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে রয়েছেন ৬৮৬ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৭১ জন, রংপুর বিভাগে ৯ জন, খুলনা বিভাগে ৪৩ জন, বরিশাল বিভাগে ২০ জন, রাজশাহী বিভাগে ২৩ জন এবং সিলেট বিভাগে ২৬ জন সুস্থ হয়েছেন।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘন্টায় কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ৫০৬ জন, আর কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫৯০ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৫ হাজার ৪৬৫ জন, আর এখন পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৫ লাখ ৬৬ হাজার ৯২৬ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৩৮ হাজার ৫৩৯ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৯৫ জন, আর ছাড় পেয়েছেন ১০৪ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৯৬ হাজার ৬৫৬ জন, আর ছাড় পেয়েছেন ৮৫ হাজার ২৪৯ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১১ হাজার ৪০৭ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, দেশের বিমানবন্দর, নৌ, সমুদ্রবন্দর ও স্থলবন্দর দিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় ৫ হাজার ৮৮৫ জনসহ সর্বমোট বাংলাদেশে আগত ১৪ লাখ ৪৩ হাজার ৯৭৩ জনকে স্কিনিং করা হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ হটলাইন নম্বরে ফোনকল গ্রহণ করা হয়েছে ১ হাজার ৯৬১টি, ৩৩৩ এই হটলাইন নম্বরে ৪ হাজার ৮৩৩টি এবং আইইডিসিআর’র হটলাইন ১০৬৫৫, এই নম্বরে ফোন এসেছে গত ২৪ ঘন্টায় ৯৬টি। সব মিলিয়ে ২৪ ঘন্টায় ফোনকল গ্রহণ করা হয়েছে ৬ হাজার ৮৯০টি।-এ পর্যন্ত হটলাইনে ফোনকল এসেছে ২ কোটি ৩৩ লাখ ১ হাজার ৩১৯টি।
দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২ জানুয়ারি পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ২০ লাখ ২৩ হাজার ১৮৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৯৯৯ জন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২ জানুয়ারি পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী সারাবিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮ কোটি ২৫ লাখ ৭৯ হাজার ৭৬৮ জন এবং ১৮ লাখ ১৮ হাজার ৮৪৯ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...