×
ব্রেকিং নিউজ :
অস্বচ্ছল ক্রীড়াসেবীদের মধ্যে মাসিক ক্রীড়া ভাতার চেক বিতরণ করলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী অস্বচ্ছল ক্রীড়াসেবীদের মধ্যে মাসিক ক্রীড়া ভাতার চেক বিতরণ করলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত ২,৬১৭,মারা গেছেন ৪৪ জন সিলেট বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৯ হাজার ছাড়ালো সাবরিনা-আরিফসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ২০ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ডিএমপি’র নির্দেশনা জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ডিএমপি’র নির্দেশনা বৈরুত বিস্ফোরণে ক্ষতি দেড় হাজার কোটি ডলারেরও বেশি : প্রেসিডেন্ট রুশ ভ্যাকসিনের ট্রায়াল খতিয়ে দেখার অপেক্ষায় ডব্লিওএইচও আমেরিকাকে পুনর্গঠনের অঙ্গীকার বাইডেন-হ্যারিসের
  • আপডেট টাইম : 02/08/2020 06:47 PM
  • 46 বার পঠিত

সিলেট নগরীর কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণের কাজ নির্দিষ্ট সময়ের আগে সম্পন্ন করেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।কোরবানির পশুর বর্জ্যর পাশাপাশি জড়ো করা চামড়া থেকে উদ্ভূত সকল প্রকার বর্জ্য অপসারণ কাজ ঈদের দিন শনিবার মধ্যরাতের মধ্যেই সম্পন্ন করে সিলেট সিটি কর্পোরেশন।
বেধে দেওয়া সময়ানুযায়ী বর্জ্য অপসারণের ২৪ ঘন্টার টার্গেট আজ বেলা ১২টা পর্যন্ত সময় থাকলেও ৬ঘন্টা আগে অর্থাৎ রাতের মধ্যেই এগুলো অপসারণ করেছে সিসিক।
ঈদের দিন (১ আগস্ট) সকাল থেকে ভোর রাত পর্যন্ত এ কাজ নিয়োজিত ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের ১২শ’ পরিচ্ছন্ন কর্মী। রাতভর এসকল পরিচ্ছন্ন কর্মীরা বিরামহীনভাবে কাজ করে সিলেট নগরীকে বর্জ্যমুক্ত করতে সক্ষম হন। এদের সার্বক্ষনিক তদারকিতে ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা হানিফুর রহমান, উপ-সহকারি প্রকৌশলী তানভির আহমদ তানিমসহ সংশ্লিষ্টরা।
এ ব্যপারে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা হানিফুর রহমান জানান, কোরবানির পর পশুর বর্জ্য দ্রুত সরিয়ে নেওয়ার জন্য সিলেট সিটি কর্পোরেশন সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহন করেছে এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই নগরী পরিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছে। নগরীর অলিগলিতেও কোন বর্জ্য বা দুর্গন্ধযুক্ত পরিবেশ বিরাজ করছে কী-না তাও খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। রাতে নগরী কোরাবানির বর্জ্যমুক্ত করার কাজ শেষ হলেও এখনো মাঠে চারটি টিম কাজ করছে বলে জানান তিনি।
সিলেট নগরীতে প্রতিদিন প্রায় ২৫০ মেট্রিক টন বর্জ্য জমা হয়। কিন্তু কোরবানির ঈদের দিনে তা বেড়ে প্রায় দ্বিগুন হয়। তাই, কোরবানির পশুর বর্জ্য ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপসারণের লক্ষ্যে নিয়মিত পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের পাশাপাশি অতিরিক্ত আরো বেশ কিছু পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ করেছিলো সিসিক। তারা ঈদের দিন সকাল থেকে বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্ত হয়ে নগরীর মধ্যে থাকা কোরবানির বর্জ্য পরিষ্কারের কাজ করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...