×
ব্রেকিং নিউজ :
ত্রিশালে নজরুল জন্মজয়ন্তীর দ্বিতীয় দিনে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান “দুর্জয় প্রাণের আনন্দে” প্রতিপাদ্যের সাথে নারী ও কিশোরীদের ক্ষমতায়ন উদযাপিত হচ্ছে “ওয়াও ভার্চ্যুয়াল বাংলাদেশ ২০২২” উল্লাপাড়ায় সড়ক দূর্ঘটমায় নিহত ৫ আহত ৬ বিইউপি’র শিক্ষার্থীদের আইএসপিআর পরিদর্শন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে অস্ট্রেলিয়া অ্যাওয়ার্ডস প্রশংসনীয় অবদান রাখছে : স্পিকার বৈশ্বিক আর্থিক প্রভাব সাধারণ মানুষের ওপর ন্যূনতম পর্যায়ে রাখতে সরকার চেষ্টা করছে : অর্থমন্ত্রী সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমেই বাংলাদেশকে থ্যালাসেমিয়া মুক্ত করা সম্ভব : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী পর্যটন প্রসারে দেশের ইতিবাচক ইমেজ বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে হবে : মাহবুব আলী বাংলাদেশ-পর্তুগাল ইন্টার-পার্লামেন্ট ফ্রেন্ডশিপ গ্রুপ গঠনের প্রস্তাব
  • আপডেট টাইম : 09/05/2022 10:58 AM
  • 57 বার পঠিত

হলিউড অভিনেতা জনি ডেপ দীর্ঘদিন ধরেই তার ডিভোর্স পরবর্তী নানান মামলায় মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত। সর্বশেষ জনি ডেপ ও তার প্রাক্তন স্ত্রী অভিনেত্রী অ্যাম্বার হার্ডের আলোচিত কেসের সাক্ষ্যগ্রহণের ১৪তম দিনে ডেপের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন হার্ড।
গত বুধবার ভার্জিনিয়া কোর্টরুমে তার অভিজ্ঞতা এবং প্রাক্তন স্বামী জনি ডেপের সাথে তার সম্পর্ক নিয়ে সাক্ষ্য দেওয়ার সময় ডেপের বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ আনেন হার্ড।
তার শুনানিতে বলেন, জনি ডেপের নির্যাতনের বর্ণনা করার ভাষা আমার জানা নেই! এখানে দিনের পর দিন বসে থাকা এবং সব ঘটনা একে একে মনে করা আমার জন্য ভয়ংকর। তার আইনি দল একজন ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্টকে কোর্টে উপস্হাপন করলে তিনি জানান, হার্ড প্যানিক ডিসঅর্ডার এবং পোস্ট-ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিসঅর্ডারে ভুগছেন।হার্ড বলেন, ভারী মদ্যপান ও মাদক সেবনের কারণেই তাকে মানসিক এবং শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন ডেপ।
তার ওপর নির্যাতন শুরু হয় অপমানজনক নাম ডাকার মাধ্যমে। সেইসাথে অবিশ্বাসের অভিযোগ, ক্রমাগত কটুক্তি এবং আক্রমণাত্মক আচরণ যেমন কাঁচ ভাঙা, দেয়ালে ঘুষি মারাও শুরু করেন ডেপ, বলেন হার্ড।
হার্ড তার অভিযোগে বলেন, নির্যাতনের সুত্রপাত হয় জনি ডেপের হাতের ট্যাটু্য থেকে। তার হাতে প্রাক্তন স্ত্রী উইনোর নামে ট্যাটু্য অংকিত। সে বিষয়ে জিজ্ঞেস করতেই জনি তার স্ত্রীকে মারধোর শুরু করেন।হার্ডের আইনজীবীরা জুরিকে একটি ছবি দেখান যেখানে দেখা যাচ্ছে তার হাত থেঁতলে গেছে।
এখনও নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। এই দুই তারকার পারস্পরিক মামলা কোনদিকে গড়াবে। অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে ৫০ মিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ চেয়ে তিনটি মামলা করেন জনি ডেপ। এছাড়া, অ্যাটর্নি ফি ও আদালতের খরচ মিলিয়ে ৩ লাখ ৫০ হাজার ডলারের শাস্তিমূলক পুরস্কার চেয়েছেন তিনি।
অন্যদিকে ডেপের বিরুদ্ধে ১০০ মিলিয়ন ডলারের একটি পাল্টা মামলা করেছেন হার্ড। এই অবস্হায় কোনো তারকা-ই কারো পক্ষ হয়ে কথা বলছেন না। তবে সাংঘাতিক ক্ষতি হয়ে গেছে জনি ডেপের ক্যারিয়ারে। ৫ টি বড় ব্যানারের ছবি থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে তাকে। তাই আশংকা করা হচ্ছে, এই মামলায় জনি ডেপ হারলে তার ক্যারিয়ারের শেষ প্রদীপটিও নিভে যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...