Logo
×
ব্রেকিং নিউজ :
হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুকের বিকল্প আসছে বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কিংবদন্তি গণসংগীতশিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীর দেবীদ্বারে ১৬টি মামলায় ৯ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করোনা বৃদ্ধি।। আইসল্যান্ডে ফের কোভিড সংক্রান্ত বিধিনিষেধ আরোপ স্থিতিশীলতার লক্ষ্যে নতুন করে আলোচনায় বসবে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতি শিশুর উন্নয়নে একসাথে কাজ করার আহবান প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরার লকডাউনে হাইকোর্ট ও অধঃস্তন আদালতে বিচারিক কার্যক্রম চলবে চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে ৬ জনের মৃত্যু মার্কিন সামরিক বিমানের ভেনিজুয়েলার আকাশসীমা লংঘন ল্যাটিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলে করোনার সংক্রমণ ৪ কোটি ছাড়ালো
  • আপডেট টাইম : 14/07/2021 07:09 PM
  • 24 বার পঠিত

গাজীপুরের কালীগঞ্জে স্ত্রী হত্যার অভিযোগে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত স্বামী মো. আবদুল আউয়াল খানকে খালাস দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
আউয়ালের আপিল মঞ্জুর করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের ভিত্তিতে আজ এ রায় দেন।
আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন এটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি এটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ।
২০০৭ সালের ১৬ জুলাই ভোর ৪টার দিকে আউয়ালের স্ত্রী নার্গিস খুন হন। এ ঘটনায় নার্গিসের বাবা অজ্ঞাত পরিচয়দের আসামি করে কালীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় পুলিশ স্বামী আউয়ালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে নেয়। পরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার দেখায়।
বিচার শেষে ২০০৮ সালের ২০ আগস্ট গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ  আদালত তাকে মৃত্যুদন্ড দিয়ে রায় দেন। পরে মৃত্যুদন্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আপিল করেন আসামি আউয়াল। শুনানি শেষে ২০১৪ সালে হাইকোর্ট মৃত্যুদন্ড বহাল রাখেন। পরে জেল আপিল করেন আউয়াল।
এডভোকেট হেলাল উদ্দিন মোল্লা গণমাধ্যমকে জানান, এ হত্যার ঘটনায় কোনো প্রত্যক্ষ সাক্ষী ছিল না। স্বামীর কোনো স্বীকারোক্তিও ছিল না। তাছাড়া ঘটনার দিন স্বামী বাসায় ছিলেন না। তিনি ব্যবসার কাজে বাজারে ছিলেন। শুনানি শেষে আজ আপিল বিভাগ আউয়াল খানকে খালাস দিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...