×
ব্রেকিং নিউজ :
খাদ্য, বিদ্যুত, আর্থিক সংকট কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্যে সু-সমন্বিত প্রচেষ্টার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান উল্লাপাড়ায় নিখোঁজ ভ্যান চালকের লাশ তিন দিন পর বিল থেকে উদ্ধার নড়াইলে ৭০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ গ্রেপ্তার ১ নানা মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কাপ্তাই হ্রদে মাছের পোনা অবমুক্ত পদ্মাসেতু নির্মাণ বিষয়ে শেখ হাসিনার বক্তব্য নিয়ে বিএনপি নেতৃবৃন্দ বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে : ওবায়দুল কাদের কান উৎসবে 'মুজিব' বায়োপিকের ট্রেলার উদ্বোধন বিএনপিসহ সকল রাজনৈতিক দলকে আলোচনায় বসার আহবান জানানো হবে : সিইসি শেখ হাসিনার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ : খাদ্যমন্ত্রী বিশ্ব মেডিটেশন দিবস কাল
  • আপডেট টাইম : 11/05/2022 07:58 PM
  • 52 বার পঠিত

ঢাকায় নিযুক্ত কানাডার হাই কমিশনার ড. লিলি নিকোলস আজ বুধবার বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় সেদেশ থেকে ভোজ্য তেল ক্যানোলা আমদানির প্রস্তাব করেছেন। এর প্রেক্ষিতে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ প্রতিবছর বিপুল পরিমান ভোজ্য তেল আমদানি করে। তাই কানাডায় উৎপাদিত ভোজ্য তেল ক্যানোলা বাংলাদেশে জনপ্রিয় হওয়ার সুযোগ রয়েছে। তিনি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলে ক্যানোলা ভোজ্য তেল উৎপাদন কারখানা স্থাপনের জন্য কানাডার প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সেক্ষেত্রে বাংলাদেশে ক্যানোলা তেল উৎপাদন করে, এদেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটানোর পর পার্শ্ববর্তী দেশে রপ্তানিও করা যাবে।  
সচিবালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রীর অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভায় টিপু মুনশি আরও বলেন, কানাডার সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির যে সুযোগ রয়েছে, সেটাকে বাংলাদেশ কাজে লাগাতে চায়। তিনি কানাডার হাই কমিশনারকে জানান, বাংলাদেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করা হচ্ছে। সেখানে বিদেশী বিনিয়োগের জন্য নানা সুযোগ রাখা হয়েছে। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কানাডা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে লাভবান হবে। 
কানাডার হাই কমিশনার ড. লিলি নিকোলস ক্যানোলা ভোজ্য তেল আমদানির প্রস্তাব করে বলেন, কানাডার ক্যানোলা ভোজ্য তেল বাংলাদেশে রপ্তানির সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারি পর্যায়ে টিসিবির মাধ্যমে ক্যানোলা আমদানি করতে পারে। এক্ষেত্রে তার সরকার সবধরনের সহযোগিতা করবে বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, কানাডা বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে আগ্রহী। তিনি বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের প্রশংসা করে বলেন, উভয় দেশের ব্যবসায়ীরা পারস্পারিক দেশ সফর করে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে পারে। তিনি বাংলাদেশের চলমান উন্নয়নের প্রশংসা করেন। 
মতবিনিময় সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নত ও আধুনিক পদ্ধতিতে পোশাক তৈরি করছে। ইউএস গ্রীণ বিল্ডিং কাউন্সিল বিশে^র ১৫৭টি ফ্যাক্টরিকে লিড গ্রীণ ফ্যাক্টরির সার্টিফিকেট দিয়েছে, এর মধ্যে প্রথম ১০টির ৯টি বাংলাদেশের। তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন নিরাপদ ও কর্মবান্ধব পরিবেশে শ্রমিকরা কাজ করছে। শ্রম আইন সংশোধন করে শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিপুল পরিমান আলু উৎপাদন হয়, এগুলো রপ্তানির সুযোগ রয়েছে। কৃষি পণ্যের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে গবেষণার কাজে কানাডা সহায়তা করলে বাংলাদেশ উপকৃত হবে। 
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে মার্চ সময়ে কানাডায় ১,০৭০ দশমিক ৫৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে। একই সময়ে বাংলাদেশ কানাডা থেকে আমদানি করেছে ৪২৮ দশমিক ৮৬ মিলিয়ন ডলারের পণ্য।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...