×
ব্রেকিং নিউজ :
দুর্যোগ মোকাবিলায় টেলিযোগাযোগ সেবা খুবই গুরুত্বপূর্ণ : ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে গাজীপুরের সংসদ সদস্য শামসুন্নাহারের শ্রদ্ধা বগুড়ায় বিএডিসি’র উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ গলফ টুর্ণামেন্টে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে কোনো বাধা নেই: আইনমন্ত্রী আলজেরিয়ায় অনুষ্ঠিত পিইউআইসি’র সভায় বাংলাদেশ সংসদীয় প্রতিনিধিদলের অংশগ্রহণ প্রধানমন্ত্রী রোববার রাজশাহীতে ১,৩১৬.৯৭ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন বিএনপির আন্দোলন চলে রিমোট কন্ট্রোলে অদৃশ্য নির্দেশে : ওবায়দুল কাদের দম ফুরিয়ে এখন হাঁটার পথ ধরেছে বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২ হাসপাতালে ভর্তি
  • আপডেট টাইম : 23/01/2023 10:24 PM
  • 28 বার পঠিত

 মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ. ক. ম  মোজাম্মেল হক বলেছেন, রাজনীতির নামে বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস এবং নৃশংস বর্বরতা এদেশের মানুষ কখনোই ভুলবে না।  সেই নৃশংস বর্বরতার জবাব ব্যালটের মাধ্যমেই এ দেশের জনগণ দেবে। আজ বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত "অগ্নি সন্ত্রাসের আর্তনাদ : স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি বিএনপি-জামাতের অগ্নি-সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিচার দাবি" শীর্ষক আলোচনা সভা ও তথ্যচিত্র প্রদর্শনীতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। 
মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আল মামুনের সঞ্চালনায়  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপীল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক বিএম মোজাম্মেল হক, এ্যাডভোকেট খোদেজা নাসরিন এমপি  প্রমুখ। 
মন্ত্রী মোজাম্মেল হক বলেন, বিগত ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনকালিন স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি বিএনপি-জামাত সমগ্র দেশে আগুন সন্ত্রাস চালিয়ে নিরীহ মানুষদেরকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে, বাংলাদেশকে ব্যর্থ ও অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার চেষ্টা করেছিল। রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে এখন আবার বিএনপি পুনরায় পুলিশের ওপর বোমা হামলা ও জনগণের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি সাধন করে, দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র করছে। এরা এদের পুরনো চেহারায় ফিরিয়ে গেছে। মন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামাতের এসব আগুন সন্ত্রাসীদেরকে বিশেষ ট্রাইবুনালে বিচার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। এদের সেই অগ্নি সন্ত্রাস আর যেন কখনো ফিরে না আসে, সেজন্য দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত হয়ে হাঁটু গেড়ে মাথা নত করে চলে গেছে পাকিস্তানি বাহিনী। কিন্তু তাদের প্রেতাত্মারা  এখনো দেশবিরোধী নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তাই রাজনৈতিকভাবে  পাকিস্তানি প্রেতাত্মাদের শেকড় উপড়ে ফেলতে হবে।
আলোচনা সভার শুরুতে বিএনপি-জামাতের অগ্নি-সন্ত্রাসের ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। প্রায় ২০ জন আগুনে দগ্ধ ব্যক্তি উপস্থিত থেকে বিভীষিকাময় দিনগুলোর কথা বর্ণনা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...